Speak Out, Stand Out, Say Loud- What’s on Your Mind !!!

৯, ১০, ১১ জুন টানা তিনদিন হরতাল ডেকেছে সেটেলারদের সংগঠনগুলো।

গত ২ জুনের হরতালে তারা খাগড়াছড়ি এবং রাঙ্গামাটিতে দাঙ্গা বাঁধাবার চেষ্টা করেছিলো। গতবারে তারা দাঙ্গা বাঁধানোর সব প্রস্তুতি নিয়েই এসেছিলো। এবারও তারা দাঙ্গা বাধানোর চেষ্টা করতে পারে। জেলা শহরের বাইরে থেকে পরিকল্পিতভাবে সেটেলারদের জড়ো করে আক্রমন চালাতে পারে। গত হরতালে প্রশাসনের সতর্ক অবস্থান ছিলো । এবারেরটা কি হয় বলা মুসকিল। হতে পারে মন্ত্রীসভায় অনুমোদিত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে সরকার প্রশাসনিক ক্ষমতা প্রয়োগ করবে। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1795

পার্বত্য চুক্তি ও ভূমি কমিশন

পার্বত্য চট্টগ্রাম সমস্যার অন্যতম মূল কারণ হলো ভূমি। ১৯৭৯ থেকে ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত তৎকালীন জিয়াউর রহমান এবং এরাশাদের আমলে সমতলের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে হাজার হাজার ছিন্নমূল, অসহায় খেটে খাওয়া বাঙালি জনগোষ্ঠিকে অত্র এলাকায় সরকারী পৃষ্ঠপোষকতায় পূর্ণবাসনের নামে পাহাড়িদের বসতির উপর জোর পূর্বক বসিয়ে দেয়ার ফলে এ ভূমি বিরোধের সূত্রপাত ঘটে। এ ভূমি বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রায় সময় পার্বত্য এলাকায় জাতিগত সহিংস ঘটনা সংঘটিত হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৭৯ সালে সমতল থেকে সরকারী উদ্যোগে বাঙালি পুর্ণবাসনের আগে পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি নিয়ে বিরোধ কিংবা পাহাড়ি বাঙালিদের মধ্যেকার জাতিগত বিভাজন ছিল না। যদিও ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীন হওয়ার সময় মোট জনসংখ্যার ১৫ শতাংশ ছিল বাঙালি যারা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় সেখানে প্রবেশ করেছিল। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1785

পাহাড়ে ভয়াবহ চক্রান্তের খেলা

সম্প্রতি পার্বত্য চট্টগ্রামের আকাশে সাম্প্রদায়িকতার নতুন কালো মেঘের আনাগোনা শুরু হয়েছে। বহিরাগত বাঙালিদের সংগঠন তথাকথিত সমঅধিকার আন্দোলন ও বাঙালি ছাত্র পরিষদ’কে নিয়ে সরকারীদল, বিরোধী দল ও পার্বত্য চট্টগ্রামে নিয়োজিত সেনাবহিনীর একটি দুষ্ট চক্র ভয়ংকর সাম্প্রদায়িক চক্রান্তে মেতে উঠেছে। অতি সম্প্রতি মন্ত্রী পরিষদ কর্তৃক অনুমোদিত ভূমি কমিশন আিইনের সংশোধিত ধারগুলো বতিলের দাবীতে আগামী ৯ জুন থেকে ১১ জুন পর্যন্ত তিন পার্বত্য জেলায় কয়েকটি বাহারি নামের সংগঠন হরতালের ডাক দিয়েছে। আলাদা আলাদা বেশ কয়েকটি সংগঠনের নাম ব্যবহার করা হলেও মূলত সমঅধিকার আন্দোলন ও বাঙালি ছাত্র পরিষদ নামে দু’টি বহিরাগত বাঙালিদের সংগঠন এ হরতাল ডেকেছে। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1786

চাকমা চলচ্চিত্র নিয়ে ব্যক্তিগত ভাবনা পর্যালোচনা

পলাশ আমার ক্লাসমেট, ভালো বন্ধুও বটে। ক্লাসের ফাকেঁ প্রায়ই আড্ডা দিই কবির মামার টংয়ে। চা-সিগারেটের ধোঁয়ায় আড্ডাটা জমে ওঠে সমকালীন রাজনীতি, সাহিত্য, গান, ফিল্ম নিয়ে। পলাশ ক্যাম্পাসে একটি সাংস্কৃতিক সংগঠন করে, চোখ ফিল্ম সোসাইটি; যাদের কাজ কারবার শুধুমাত্র ফিল্ম নিয়ে। তার সাথে বন্ধুত্বের সুবাধে দুইজনে প্রায়ই ফিল্ম নিয়ে গল্প করি। হঠাৎ একদিন সে প্রশ্ন করে বসে, দোস্ত তোদের চাকমা কোন ফিল্ম নেই? তার খুব ইচ্ছা চাকমা ফিল্মগুলো দেখা আর এ কারণেই আমাকে এই প্রশ্নটি করে বসে। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1776

ক্ষুদ্র জাতিসত্তার প্রশ্নে রাষ্ট্রের ভূমিকা ও আধিপত্যের ভাষা

 লিখেছেন: আহমদ জসিম

আমরা বিষয়টা শুরু করতে পারি গত ২০১০-এর ১৯ ফেব্রুয়ারি রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় ঘটে যাওয়া সংঘাত থেকে। সেই ঘটনায় হত্যাযজ্ঞ, লুটপাট অগ্নিসংযোগসহ মানবতার চরম লঙ্ঘন হয়েছিল এটা পাহাড়ি জনগণের উপর চলমান রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের ছোট্ট একটা অধ্যায় মাত্র। মোটামুটিভাবে আমরা বিষয়টাকে এভাবে দেখতে পারি; রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে নিপীড়নের শুরু ১৯৫৬ থেকে আর সেই নিপীড়নের নতুন মাত্রা যুক্ত হয়েছে ’৮০ দশক থেকে। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1751

ঋতুপর্ণ ঘোষের মৃত্যুতে আমরা শোকাহত

RITUPORNNO.jpg৩০ মে, ২০১৩ সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কলকাতার নিজ বাড়িতে মারা যান চলচ্চিত্র নির্মাতা ঋতুপর্ণ ঘোষ৷ ১৯৬৩ সালে জন্মগ্রহণ করা ঋতুপর্ণ তাঁর প্রথম ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন ছোটদের জন্য৷ ১৯৯৪ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবির নাম ‘হীরের আংটি’৷ বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1748

পাহাড়ি নিপীড়িত জনগোষ্ঠির আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার প্রশ্নে শাসকশ্রেণীর তত্ত্বের বিপরীতে একটি বিশ্লেষণ

লেখকঃ মনজুরুল হক

আমাদের নিজেদের মত করে সাজানো সমাজে আদ্যপান্ত লোহার ব্যারিকেড দিয়ে অনেক ধেয়ে আসা জ্বলজ্বলে সত্য, নির্মম বাস্তবতা, বেশুমার মানবতার অবমাননা আর নির্জলা মনুষ্যমৃত্যু সংবাদগুলোকে আমরা নিখুঁত কায়দায় অবজ্ঞা-অবহেলায় এড়িয়ে যাওয়া রপ্ত করেছি। একে আমরা বলি-শান্তি আর সৌহার্দপূর্ণ বসবাস! অ্যাফ্লুয়েন্ট নগরকেন্দ্রীক সমাজে এটি একটি ‘আর্ট’ বটে! চোখ মেললেই যেখানে থ্যাতলানো মুখচ্ছবি, পা বাড়ালেই যেখানে মড়ার খুলি, হাত বাড়ালেই যেখানে এলিট শ্রেণীর পৃষ্ঠপোষকতায় রাষ্ট্রীয় ‘আর্টিস্টিক হত্যাকান্ডের’ শিকার মৃত মানুষের ঠেলে বেরিয়ে আসা নাড়িভুঁড়ি, সেখানে আমাদের প্রাণান্ত চেষ্টা ফরগট-ফরগট-ফরগটেন! তার পরেও কিছু বেয়াড়া বাতাস কিছু অপ্রিয় বিষয় বয়ে নিয়ে আসে। আমরা ক্ষণের জন্য থমকে যাই। পর মুহূর্তে নীতি,তত্ত্ব আর আশু করণীয় মিশেল করে নিরাময়ের দাওয়াই আবিষ্কার করি। সেবন করি। অতঃপর নিরাময়! শান্তি! শান্তি! অপার শান্তি!! বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1715

১০ এপ্রিলত

 

অক্তর দেমাদেম্মে চাম ফুরি বিঝু ফুল’র ফুদানাত

ভিরে এযোক পাজন’র সাত রঙ চাদিগাং কুলে কুলে

কোচ্চে গাবুরির হাদি হুজোল, ভরি থোক রাঙা রঙ ফুলে

জনমান বাজি যোক চেঙে মেয়নির কাজলঙর কুলে।

এ হেনত বাম ফেলে বাম ভাঙি বিঝু ভাজোক উচ্চর গঙারে

লোগাঙ কধা কোক, বেক কবিতেত মারি যোক বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1699

পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রকাশনা ও স্বাধীন প্রকাশনা বিকাশে প্রতিবন্ধকতা

 

আমাদের পার্বত্য চট্টগ্রামের হাতে-কলমে প্রকাশনার কথা যদি বলি তা দীর্ঘ বছরের নয় বরং দীর্ঘ দিনের বা মাসের একটি তকমা দিয়ে তাকে আমরা প্রতিষ্ঠিত করতে পারি । তবে এই সল্প সময়ে আমরা বেশকিছু উল্লেখযোগ্য প্রকাশনা পাই যা আমাদের উদ্দীপিত করে সামনের দিকে ধাবিত হবার। কিছু সংক্ষিপ্ত ব্যাখার সাহায্য এই সল্প পরিসরে আমরা সেই বিষয়ে আলোকপাত করার চেষ্টা করবো।

 

পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রকাশনা পরিচিতিঃ

পার্বত্য চট্টগ্রামের ইতিহাসে প্রথম প্রকাশনা “গৈরিকা” ১৯৩৬ সালে আত্মপ্রকাশ করে। ধারণা করা হয়, চাক্‌মা রানী বিনীতা রায়ের পৃষ্ঠপোষকতায় গড়ে উঠা রাজবাড়ি কেন্দ্রিক এই প্রকাশনাটির প্রচার সংখ্যা চৌদ্দ। ১৯৬৬ সালে তৎকালীন মহকুমা ও বর্তমান বান্দরবান পার্বত্য জেলা থেকে ত্রৈমাসিক “ঝরণা” আত্মপ্রকাশ করে। এরপর ১৯৬৭ সালের ডিসেম্বর মাসে বিরাজ মোহন দেওয়ানের সম্পাদনায় প্রকাশিত হয় পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রথম মাসিক পত্রিকা “পার্বত্য বাণী”। এই মাসিক পত্রিকাটি ১৯৭০ সাল পর্যন্ত নিয়মিতভাবে প্রকাশিত হত।  এছাড়া, স্বাধীনতাত্তোর সময়ে বেশ কয়েকটি স্বল্পায়ু সাময়িকী চোখে পড়ে। ১৯৪০ সালে “প্রগতি”, ১৯৪৭ সালে “রাঙ্গামাটি নিউজ” ও ১৯৬২ সালে “রাঙ্গামাটি” তাদের মধ্যে অন্যতম[1] বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1649

মুড়ির ঠোঙা অথবা দ্রোহের মন্ত্রনা-২

(১) গড়াচ্ছে রাত আর দিন/ বাড়ছে আমার পোড়া মাটির ঋণ।

 

“আপনাদের আর কোন প্রশ্ন থাকলে জিজ্ঞেস করতে পারেন”

আমার কথার উত্তরে একজন মধ্যবয়স্ক বললেন,

“আচ্ছা বাবাজি তোমার সাহায্য সহযোগিতায় আমরা নাহয় চাষ করলাম। ভালো ফলন হলো কিন্তু তারপর আমার ফসলি জমি যদি বাঙালিরা দাবি করে বসে? যদি আমার ওই জমিটা তারা দখল করে নেয় তার সমাধান কি হবে?

আমি টক শোয়ের উপস্থাপকের মতো স্মিত হেসে বললাম, “এক্ষেত্রে আমার বা আমাদের সংস্থার কিছু করার নেই- হে হে। এটা রাজনৈতিক সমস্যা আর সরকার, থানা-পুলিশের ব্যাপার। আর কোন টেকনিকাল সমস্যা থাকলে বলতে পারেন।” বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1584

Page 18 of 27« First...10...1617181920...Last »