আদিবাসীদের বিকাশ এবং ব্যাপারীদের bKash


(১) সোজা হিসাব

 

কে কে পাহাড়ের আদিবাসী সংস্কৃতির বিকাশ চান?

নিশ্চয় সবাই চান। এবার বলুন

কে কে পাহাড়ে পর্যটনের প্রসার চান?

অনেকেই চান। কেন চান?

আপনারা বলবেন, কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে। মানুষের আয় রোজগার বাড়বে। এলাকার উন্নয়ন হবে। দূর্গম অঞ্চলে রাস্তাঘাট হবে। আমরা আধুনিক দুনিয়ার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারবো। আমরা নেংটি ছেড়ে জিন্সের প্যান্ট পরবো। আমরা উন্নত হবো… ইত্যাদি ইত্যাদি। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2385

পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িকতার উৎসমুখ

আমাদের পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রায়শই দেখা যায় বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ইস্যুতে সাম্প্রদায়িক মনোভাব এবং তার ভিতরকার রূপ ছেড়ে বাইরে এসে সৃষ্টি করেছে মারামারি-খুনোখুনি’র মত অস্বাভাবিক পরিস্থিতি, যাকে সোজা কথায় আমরা দাঙ্গা বলে চিহ্নিত করে থাকি। এবং এটি স্বাভাবিকভাবেই পার্বত্য চট্টগ্রামে অবস্থানরত দুই জাতির জাতিগত দ্বন্দ্ব। একদিকে পাহাড়ি আর অন্যদিকে সরকার কর্তৃক অভিবাসিত বাঙালি ।

পার্বত্য চট্টগ্রামের এই পাহাড়ি আর বাঙালি সাম্প্রদায়িক মনোভাবের সৃষ্টি একদিনে হয়নি; পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি আর বাঙালিদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক মনোভাব সৃষ্টির ইতিহাস বেশি দীর্ঘ নয়, আবার একেবারে ইদানিং কালেরও নয়। পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি আর বাঙালিদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক চেতনা সৃষ্টি, একে অপরের প্রতি অবিশ্বাস-ঘৃণা সৃষ্টির ব্যাপারে বুঝতে হলে ইতিহাসের পাতায় কিছুটা চোখ বুলাতে হবে। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2379

জুমল্যান্ড ইন্টারনেশনাল ইউনিভারসিটির গ্রাজুয়েটদের উদ্দেশ্যে

পাজ বঝর পর মরি যেম
দশ বঝর পর গ্রন্থ ছাবেম
তারপর রিনিচেম; চাঙমা সাহিত্য হুদ্দুর উজেল…
ইয়্যান যদি অয় আমা চাঙ্‌মা সাহিত্য চর্চার বাস্তবতা বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2375

উৎপল খীসা’র মতামতের জবাবে-

শ্রদ্ধেয় উৎপল খীসা,
ই-পত্রের শুরুতে আমার কুটি কুটি সালাম জানবেন। আশা করি ভগবানের অশেষ কৃপায় আপনার দিনকাল ভালোই কাটছে। এদিকে আমাদের ও কোনমতে এদিক-সেদিক কোরে দিন কেটে যাচ্ছে।
পরসমাচার এই যে, cht24.com –এ মতামত বিভাগে আপনার মতামত দেখে আমি যারপরানই উৎফুল্ল আর আনন্দিত বোধ করছি, এই কারণে যে অনেকদিন পর এক সমালোচকের দেখা পাওয়া গেল! সমালোচক পাওয়া এখন রীতিমত দুষ্কর হয়ে দাঁড়িয়েছে দাদা। এখনকার মানুষ তো ব্যক্তি সম্পর্কের গোড়াটা শক্ত রাখার্থে আলোচনা- সমালোচনা ভূলেই গেছে, তারা এক করে ফেলেছে আলোচনা আর সমালোচনা সংজ্ঞা। আপনি এতোদিনে এই অসাড়তা ভেঙ্গে দিলেন। তাই ভাবলাম যাই আজ তর্কের খাতিরে তর্ক করে আসি এই আন্তর্জালের উঠোনে।
আমার পক্ষ থেকে সমালোচনীয় সালাম জানবেন। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2369

আতঙ্কিত এক জুমবলার আদ্যোপান্ত

 

[১] হাতির শূঁরের মত উপত্যকায় নেমে গেছে এহ্‌দোশিরে মোন(পাহাড়)। এ মোন-এর তুগোনে(পাহাড়ের সর্বোচ্চ চূড়া) উঠলে দেখা যায় দূরে আরো কয়েকটি মোন-মুরো মাথা উচু করে আত্মগৌরবে দাঁড়িয়ে আছে। এক মোন’তুগোন থেকে অন্যটির দিকে তাকালে দ্বিতীয়টিকেই বেশি উচ্চতর মনে হয়। প্রতিটি মোন তুগোনে মুকুটসদৃশ আদামগুলো(গ্রাম) যেন স্পর্শ করতে চাইছে নীল আকাশের চূড়ান্ত স্বাধীনতাকে! বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2344

উৎপল খীসা’র মতামতের বিপরীতে

“মাতৃভাষায় সাহিত্য চর্চার আবশ্যিকতা- উৎপল খীসা” শিরোনামে সিএইচটি২৪ডট কম অনলাইন নিউজ সাইটের মতামত বিভাগে প্রকাশিত লেখাটির মধ্যে ফুটে উঠা কিছু বিষয়ের সূত্র ধরে আমরা মাতৃভাষায় সাহিত্য চর্চার বাস্তবতা নিয়ে আলোচনা করতে পারি। লেখকের দৃষ্টিতে উঠে আসা কয়েকটি চুম্বক বিষয়কে এখানে টেনে আনছি- বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2364

আত্মহত্যা

সত্যিকারভাবে না হলেও একটা আদর্শের আত্মহত্যা ঘটালো সমরেন্দ্র নাথ। দীর্ঘদিন ধরে ভেবেছে কীভাবে আত্মহত্যা করা যায়, ট্রাকের নীচে, ফাঁস লাগিয়ে , নাকি কোনো বড় দালানের ছাদে উঠে ঝাঁপ দেওয়া যায়। কিন্তু যদি মৃত্যু না হয়ে আহত হয়ে বাঁচতে হয় তাহলে কী অবস্থা হবে তা ভেবে আর শরীরি আত্মহত্যা করা হয়নি। সেটা না করে শেষ পর্যন্ত আদর্শের আত্মহত্যা ঘটলো। তবে সমরেন্দ্রর ইচ্ছা স্ত্রীকেও আত্মহত্যার পথে নিয়ে যাবে। কারণ তার জন্যই তো আত্মহত্যার সিদ্ধান্তটা নিতে হয়েছে। স্ত্রীই সমরেন্দ্রর আত্মহত্যার প্ররোচনাকারী!! যৌনরোগ যদি হয় অবশ্যই স্ত্রীর শরীরেও তা ঢুকাতে হবে! বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1949

ড. মানিক লাল দেওয়ানের ‘ আমি ও আমার পৃথিবী’ : সংক্ষিপ্ত আলোচনা

গত বৃহষ্পতিবার রাতেই ড. মানিক লাল দেওয়ানের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ ‘আমি ও আমার পৃথিবী’ শেষ করেছি। আজ শুক্রবার সকালে আবার গুরুত্বপূর্ণ কিছু অধ্যায় পড়ে বুঝার চেষ্টা করলাম। ড. দেওয়ানের যে পৃথিবী তাতে বিচরণ করলে (পড়লে) আসলেই পৃথিবীর অনেক কিছু জানা যায়। তা ছাড়াও পার্বত্য চট্টগ্রামের কিছু বিষয়; যেগুলো নিয়ে নানা বিতর্ক আছে, থাকবে সেগুলোতে তিনি নিজস্ব মতামত তুলে ধরেছেন এবং ভালো ইতিহাসবিদ যেন সেগুলো নিয়ে গবেষণা করেন তার প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করেছেন। বইয়ের সর্বশেষ দুই প্যারায় পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের ভ্রাতৃঘাতী সংঘাত নিয়ে কথা বলেছেন। এ সংঘাত বন্ধের আকুতি জানিয়ে বলেছেন, অহিংস পন্থা ব্যতিরেকে এ পৃথিবীতে মহৎ কিছু অর্জন করা সম্ভব নয়। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2351

সাহিত্য বিষয়ক ভাবনাঃ প্রসঙ্গ চাক্‌মা সাহিত্য ও চাক্‌মা কবিতা

সাহিত্যের প্রতি অনুরাগ আমার খুব বেশি দিনের নয়। সত্যিকার সাহিত্য হিশেবে গণ্য পুস্তকের সাথে পরিচয়টা আরো স্বল্প সময়ের। এরই মধ্যে ফেইসবুক-ব্লগের কল্যানে একটু-আধটু লেখার অভ্যাস গড়ে উঠেছে আমার। এমন অল্প জ্ঞানে সাহিত্য বিষয়ক কোন কথা প্রকাশ্যে বলার বিপদ সম্পর্কে অবগত নয়, এমন নয়। সাঁতার শিখতে গেলে যেমন পানিতে নামতে হয়, তেমনি সাহিত্য বিষয়ক আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে না গেলে এর ব্যাপ্তি বোঝা যায় না। আদিকাল থেকে সাহিত্য চর্চার যে সূচনা হয়েছে, তা আজ হাঁটি হাঁটি পা পা করে বহুদূর এগিয়েছে; ফলে শিল্প-সাহিত্যকে প্রতিনিয়ত হতে হয়েছে আধুনিক, বর্তমানে অগ্রসররা হাঁটছে উত্তরাধুনিকতার মহাসড়কে। এটা অস্বীকার করার জো নেই যে, আধুনিক বা উত্তারাধুনিক শিল্প-সাহিত্য এখন খুব একটা জনপ্রিয় বিষয় নয়, মুষ্টিমেয় মানুষ বা ক্ষুদ্র একটি অংশ যারা শিল্প-সাহিত্যের জায়গাটি ভাল বুঝে, তারা অধিকার করে রেখেছে। যে কথাটি বলার জন্য এতকিছু বলা তা হল- ইদানিং কয়েকজন সাহিত্যিকের লেখা পড়ে বুঝতে না পারার অক্ষমতা আমার বুঝার ক্ষমতাকে বিদ্রুপ করছে, যেন উপহাস করতে করতে কেউ আমাকে বলছে “তুমি এখনো এসব বোঝার মত জ্ঞান রাখ না”! একদিক দিয়ে এটাই বর্তমান সাহিত্যের ক্ষমতা, সাহিত্য উপভোগ করতে পাঠকেরও যথেষ্ট জ্ঞানের প্রয়োজন হচ্ছে। বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2345

CHT BD-তে দীপংকর ত্রিপুরার পোষ্টের সূত্র ধরেঃ প্রসংগ FAKE ID

ফেইসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে বিভিন্ন ইস্যুকে ঘিরে বিতর্ক চলছে। বিতর্কের উত্তাপ আমার গায়েও কিছুটা লাগেছে। প্রাথমিকভাবে স্টেটাস লিখে, মন্তব্য প্রদান করে এ বিষয়ে আমার ব্যক্তিগত মতামত জানানোর পরও আরো কিছু লিখতে বসাটা বোধহয় বিষয়গুলোর দিকে আরো ব্যাপক সংখ্যক মানুষের আকর্ষণের চেষ্টা অথবা চলমান বিতর্কের পালে আরো একটু হাওয়া লাগানো! সামাজিক ও বাস্তবতা বিচারে বিতর্কে আলোচ্য বিষয়গুলো আমার কাছে স্পর্শকাতর মনে হয়েছে- এ প্রসংগে তৎক্ষণিক কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া বা দেওয়া প্রায় অসম্ভব, তবুও একে আরেকবার আলোচনার সূত্র ধরে টেনে আনার উদ্দেশ্য এই যে, তাতে চলমান বিতর্ককে আরো গভীরে গিয়ে স্পর্শ করা যেতে পারে! গতরাতে পাহাড়ের অন্যতম গ্রুপ CHT BD-তে চোখ রাখতেই দুটি বিতর্কে চোখ আটকে গেল। এর একটি- FAKE ID বিষয়ক, পোষ্টকারী দীপংকর ত্রিপুরা। অন্যটি- ধর্ম বিষয়ক, বলতে পারেন-নাস্তিক্যবাদ, পোষ্টকারী এডিসন চাক্‌মা। তাহলে দীপংকর ত্রিপুরা দাদার পোষ্টকৃত বিষয়টির দিকে একটু আলোকপাত করা যাক- বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন.. »

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/2332

Page 11 of 27« First...910111213...20...Last »