«

»

এই লেখাটি 1,814 বার পড়া হয়েছে

Print this প্রকাশনা

"অমিত হিলের" নামে "হিল" (Hill) উপাধি কেনো ? অতঃপর নতুন চেতনার জাগরণ ।।

“অমিত হিলের” নামে “হিল” (Hill) উপাধি কেনো ? অতঃপর নতুন চেতনার জাগরণ ।।

“হিল” (Hill) এর বাংলা হচ্ছে “পাহাড়”, যা “পর্বত” (mountain) থেকে ভিন্ন নিঁচু এবং ঢালু শ্রেনীর ভূমিমালা । সেই অনেক কথা, অনেক অজানার ইতিহাস যা পাতিহাসকেও হার মানাবে । একদিন কলেজে এক বাঙালী ছাত্র (আমার বন্ধু) জিঞ্জেস করল যে, “জুম্ম” শব্দের মানে কি ? আমি আমার মতো করে বললাম, 'জুম্ম' হচ্ছেন তারা যারা জুমিয়া চাষ করে জীবনধারণ করেন; সেদিন এর পিছনে যে এক বড়ধরনের রাজনৈতিক পটভুমি ছিল তা ব্যাখ্যা করিনি । ব্যাখ্যা করিনি বলে আমি নতুন চিন্তা উন্মেষ ঘটানোর সুযোগ পেয়েছিলাম সেদিন । ভাবতে ভাবতে আমার পাহাড়ের কথা মনে পড়ে যায় । চিন্তা করি জুম্ম না বলে পাহাড়ি বললে কেমন হয়, যাতে করে সবাই সহজে বুঝবে এবং পাল্টা প্রশ্ন করবে না । তাছাড়া, দিনেদিনে পরিবেশ/গাছ-পালা/জঙ্গল নিয়ে সচেতন হয়ে উঠি । তাই, জুম্ম পরিচয় দিতে গিয়ে জুম চাষের কথা মনে পড়ে যায়, যে চাষের জন্য অনেক ছোট-বড় গাছ উজার করতে হয় । আগেকার দিনে সেটালার বাঙালীদের আবাস গড়ে না উঠাতে ইচ্ছা করলে আমাদের পাহাড়ীরা এক জায়গা থেকে সহজে অন্য  জায়গায় জুম চাষের জন্য স্থান নির্বাচন করতে পারতো । এখন সেদিন আর নেই । সেটেলার বাঙালীরা ও এখন পাহাড় উজার করে বসতি করছে, লাকরি কেটে বাজারে বিক্রি করছে ।

সাংবাদিক বিপ্লব রহমানের মতে, “হিল ট্যাগিরা কুমুন্ডুক/ ফেইক/ উন্নয়নের বাঁধা/ মিথ্যাবাদী এবং ইত্যাদি” । শুনে মনে ভীষন আঘাত লাগে, যে আঘাতের কোন ঔষধ নেই । যেসব গুটিকয়েক প্রগতিশীল বাঙালী আমাদের পাহাড়ীদের কথা পত্র/পত্রিকায় লিখছেন সেসব প্রগতিশীল বাঙালীদের মনে যদি এমন হীন মনোভাব থেকে থাকে তাহলে অপ্রগতিশীল বাঙালীদের মনোভাব কেমন হবে যা গভীর ভাবনার বিষয় । জানি না “হিল” মানে কিভাবে “কুমুন্ডুক/ ফেইক/ উন্নয়নের বাঁধা/ মিথ্যাবাদী”শব্দযুক্ত জটিল বিশেষণে ভরপুর হয় ? আসলে অনেকেই “হিলকে” পিছিয়ে পড়া নয় বরং অশিক্ষিত/মূর্খ/সাপ-ব্যাঙ খাওয়া মানুষের সমাহার বলে মনে করেন; যা ভ্রান্ত এবং হীন মানসিকতা পরিপূর্ণ ।

“হিল” মানে পাহাড়ের তাৎপর্য যে কত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছিল মানবজাতির গড়ে তোলা নতুন সভ্যতার জন্য তা হয়ত অনেকেই জানেন না । আদিকালে বন্যা থেকে রক্ষা পাবার জন্য অনেক ভূবাসন গড়ে উঠেছিল পাহাড়ের উপর; তাছাড়া প্রতিরক্ষার জন্য পাহাড় ছিল উপযোগী স্থান । এছাড়া ও জীবনধারণের চাহিদা মেটাতে, পারিপ্বার্শিক সৌন্দর্য বর্ধনে পাহাড় আদি মানুষকে খুব সহজেই টেনে নিতো । পাহাড় ঘেষে একটা যদি নদী প্রবাহিত হয় তাহলে জীবনধারণের সকল চাহিদা যেন মিটে যায় । প্রাচীন পশ্চিমাতে রোম শহর ছিল সবচেয়ে প্রভাবশালী এবং সম্পদশালী শহরটির একটি, সেই রোম ও সাতটি পাহাড় বেষ্টিত এক অপরিসীম সুন্দর শহর; যে পাহাড়গুলো বহিঃশক্রুর আক্রমণ থেকে রক্ষা করতো । পশ্চিমাতে ধর্মীয় উপাসনালয়গুলোকে ও পাহাড়ের উচ্চে স্থাপন করা হতো সম্মানের সহীত; কোরিয়া/চীন/জাপানে ও তা করা হতো একসময় । তাছাড়া যে শহর যতবেশি পাহাড় বেষ্টিত হবে সেই শহরের সৌন্দর্য ততবেশি বৃদ্ধি পাবে, যেমন ভারতে দার্জিলিংয়ের কথা, শ্রীলংকার ক্যান্ডি শহরের কথা, থাইল্যান্ডে চিয়াংমায়ের কথা, চীনের অধীনে হংকং ও এক পাহাড়ের শহর, ভিয়েতনামের হোলাং বে, ভূস্বর্গের দেশ ভূটান, জাপানের পাহাড় বেষ্টিত নাগাসাকি শহর, বাংলাদেশের রাঙামাটি শহর এবং আরো অনেক । তাই “পাহাড়ী” পরিচয়ে আমি গর্ববোধ করি । পাহাড় মানুষের চাহিদা মেটাতে সবসময় অন্যতম অবদান রেখে এসেছিল অতীতে, বর্তমানে ও পাহাড় মানুষকে বেশি করে টানে । পাহাড় মানুষকে প্রকৃতি নিয়ে ভাবিয়ে তুলে; শান্তি বিতরণ করে; এক সত্যিকার সরল মানুষ বানাতে শেখায় ।

আমাদের অতীতের রাজাদের এমন দূরর্দশী চিন্তা ছিল । তারা বন্যা থেকে রক্ষা পাবার জন্য পাহাড় খুঁজেছে; প্রতিরক্ষার জন্য ও আমাদের পাহাড়গুলো অনেক অবদান রেখেছিল অতীতে; তাই মাতা কালিন্দিরাণী ব্রিটিশ শাসকদের সাথে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার সাহজ পেয়েছিলেন । আজ বাঙালী জাতির জন্য দূঃখবোধ হয় । যে পাহাড়কে আগে তারা হীন/বর্বর হিসেবে দেখতো তারা এখন সেই পাহাড়ে জায়গা কেড়ে নিতে মরিয়া ! স্বার্থবাদী মানুষরা তাই পারে । শোনা যায় এখন ঢাকা/চট্রগ্রামের অনেক কোটিপতি পাহাড় লিজ দিয়ে থাকে আর কন্যা সন্তানদের যৌতুক হিসেবে দেই । কি যে মানুষের লোভ ! তারা আবার প্রকাশ্য পাহাড় নিয়ে অতুর্ক্তি কথা বলে থাকেন ।

আমি “হিলের” মানুষ তাই এইটা আমার পরিচয়ের এক অংশ হিসেবে রাখি । কেউ আর পাল্টা প্রশ্ন করে না “হিলের” মানে কি, যা আগে জুম্ম বলাতে অনেক উত্তর দিতে হতো । তাছাড়া নতুনত্বর চিন্তা/চেতনা আমাকে আরো বেশি টানে । “পাহাড়ী” ট্যাগে যাদের গা জ্বলে, আরেকটু গা জ্বালান । আমি পাহাড়ের মানুষ, এক পাহাড়ী । এটাই আমার পরিচয় ।

zp8497586rq

About the author

অমিত হিল

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1459

2 comments

1 ping

  1. JUMMOBI

    @arjyo chakma, আপনি খুবই সঠিক কথা বলেছেন। এরা শুধু সুবিধাবাদীই নয়, খুবই পক্ষপাতদুষ্ট ও একেপেশে। মুখে ভাতৃঘাতি সংঘাত বন্ধের কথা বললেও আসলে এরা চায় আরো বেশী করে আমাদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়াতে। ঐক্যর কথা বলা এদের কাছে একটা ফ্যাশন। পার্বত্য রাজনীতিতে এদের কোন আত্নত্যাগ নেই। সাধারণ জনগণ এদের চেনেও না। জেএসএস, ইউপিডিএফ, পিসিপি’তেও এদের কোনও গ্রহণযোগ্যতা নেই। অথচ এরাই এখন জুম্ম জাতির উপদেষ্টা সেজে বসেছে। মুখে শুধু বড় বড় কথা। নামের মধ্যে “হিল” সাইনবোর্ড লাগানোও এদের একটা ফ্যাশন। জনগণ যেদিন এই সব হিল বেপারীদের ধরে পাইকারি হারে “গদাম” দেবে, সেদিন এরা পালানোর পথও খুঁজে পাবে না। এরা আসলে পাকিস্তানি আইএসএর চর কি না, সেটা খুঁজে দেখার সময় এসেছে। জুম্ম দিয়ে জুম্ম ধ্বংস করা এদের গোপন মিশন। এইসব ছারপোকাদের সবখানে বয়কট করুন।

  2. হেঙগরঙ

    valo khub valo.

  3. Nina Chagma

    Mr. Amit, we can’t point out any sacrifice of yours for the CHT movement. So you have used that “HILL” with your name to show others, you are a great Jumma lover! But your multi-faces already known to us and we don’t need your advice at all.

    That day has come. People will kick out people like you in the spot. Shame on you!

Comments have been disabled.