«

»

এই লেখাটি 4,132 বার পড়া হয়েছে

Print this প্রকাশনা

জুম্ম নারীর বিজ্ঞাপনঃ মাধ্যম ফেইসবুক

বন্ধুগণ, আজকে আমি যে লেখাটি লিখতে বসেছি তা দেখে আমার অনেক ফেইসবুক বন্ধু-বান্ধবী হয়তো চরমভাবে ক্ষেপে যাবেন আমার উপর। অনেকে আমাকে তেতোঁ ভাষায় মন্তব্য করতে পারে, ফেইসবুকের ফ্রেন্ড লিস্ট থেকেও অনেকে বাদ দিতেও পারে, এমনকি রিপোর্ট করে ব্লগ করে দেয়ার সম্ভাবনাকেও উড়িয়ে দিচ্ছি না। তারপরও ঝুঁকি ছাড়া যেমন ব্যবসায় মুনাফা মেলেনা, তেমনি প্রতিক্রিয়া হীন লেখা লিখে মজা পাওয়া যায় না এই ফেইসবুক, ব্লগ জমানায়। প্রথমত বলে নিচ্ছি যে, আমি যা লিখছি তাকে চরম সত্য বলে বিশ্বাস করারও দরকার নেয়; দ্যাহা মিথ্যা চাঁপাবাজি বলেও হেয় করে উড়িয়ে দেওয়াকেও আনুচিত বলে মনে করছি। যথার্থ বুদ্ধিরা তাদের নিজের বিবেচনা, দিয়ে নিজের পর্যবেক্ষন দিয়ে আমার কথাটা বিশ্লেষন করবেন এই অনুরোধ রইল।
০১
ফেইসবুকে আসি প্রায় তিন বছরের মত। এই তিন বছরের প্রথম দিকের দিনগুলিতে সপ্তায় একবার মেইলচেকের সাথে ফেইসবুকে চোখ বুলাতাম। নতুন ব্যবহারকারীদের সাধারন অভ্যাস মত ফেইসবুক দুনিয়ার মেয়ে বান্ধবী খুঁজতাম, প্রোফাইল পিকচারটা মেয়ে [ঐশ্বরীয়া, রানী, দিপীকা (ছবি) সহ অনেকের সাথে বন্ধুত্বও হয়েছিল] দেখেলে যে এই মনটা তখন কেমন কেমন প্রেম প্রেম করতো তা বলে কি করে যে বুঝায়! আর অমনি রিকুয়েস্ট পাঠাতে পাঠাতে কত বার যে ব্লগ হয়েছি তা যে সমগোত্রীয় সারা কেউ বুঝবে না এই কথাটা গেরান্টি দিয়ে বলতে পারবো। ব্যাক্তি জীবনে মেয়ে বান্ধবী খুব কমই ছিল, আর যে কয়েকজন হাতে গোনা ছিল তাদেরকে চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলার সাহস এই জীবনে হয় নি। আজো যে এই অধম মেয়ে দেখলে দূর থেকে পালাতে চাই তা বোধ করি সিগমুন্ড ফ্রয়েডের গবেষনার ক্ষেত্রকে প্রসারন করে নিয়ে যাচ্ছে অনন্তের দিকে। না, এমন নয় যে এই অধম প্রেম-ভালোবাসাকে চিনে না বা জানে না !তার জীবনেও যে প্রেম এসেছিল(!), তা তার ফ্যেকাশে চেহারায় যে রঙ চড়িয়ে দিয়ে গেল, তা তো নিকট চক্রের মানুষ খুব ভালোভাবে স্মরন রেখেছে; একমাত্র এই নিকৃস্ত অধম বাদে। যা হোক, এবার আসল বিষয়ের দিকে নজর দেয়া যাক।
০২
বর্তমান পুজিবাদের যুগে যে সবকিছুর একটা আর্থিক মুল্য আছে তা বোধ হয় পড়েছিলাম উপন্যাস “শাইলকের বানিজ্যবিস্তার”এর মধ্যে। উপন্যাসটি পুজিবাদের বিস্তারের প্রতিচ্ছবি যেখানে পুজিপতিরা কিভাবে সমাজের সব চিন্তা-বিশ্বাস-লোকজ-অতীত-বর্তমান-ভবিষ্যতকে কিনে পরে মানুষকে বন্দিত্বর শিকল পড়িয়ে দেয়। আমি সেই ধারা বিস্তারের সাথে নব্য বিজ্ঞাপন প্রসারের প্রক্রিয়াকে নিজের মত করে বিচার করার চেষ্টা করব।
প্রথমে যে বিষয়টি চোখে পড়ে তা হল- আজকাল ফেইসবুকে অনেক আদিবাসী ছেলেমেয়ের ব্যাপক উপস্থিতি। তারা অনেকে এই দুনিয়ায় নবাগত। আমিও সেই বয়সটা পার করে এসেছি বিধায় জানি যে, এই বয়সে মানুষকে নিজের সক্ষমতা, অস্তিত্বকে জানানোর জন্য প্রত্যেক মানুষের মধ্যে একটা টেন্ডেন্সি থাকে। কিন্তু, এই সক্ষমতা জানান দেয়ার ধরনতা আমাদেরকে অনেকে সময় ভালো-মন্দ বাচ-বিচারকে অগ্রাহ্য করে চলতে উত-সাহিত করে। ঠিক এই নিজেকে প্রকাশে উত-সাহ জিনিষটা আজ কাল খুব বেশী দেখা যাচ্ছে আমাদের আদিবাসী ভাই বোনদের মধ্যে। আর এর ক্ষতিকর দিকগুলো সবচেয়ে বেশী প্রভাবিত করছে আমাদের জুমবোনদেরকে। কিছু কিছু জুম্ম নারীকে(বিশেষ করে যারা বয়সে নবীন) ইদানিং ফেইসবুক বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজেকে প্রবলভাবে প্রকাশের নেশা পেয়ে বসেছে। এরা নিত্য কার ফ্রেন্ড লিস্টের সাইজ বড়, কার মন্তব্যে লাইক/কমেন্ট বেশী পরে, কার ছবিতে বেশী লাইক/কমেন্ট এই সব নিয়েই বেশী চিন্তত্ব! ফলে অনেকে ভালো-মন্দ বিবেচনায় না নিয়ে ফ্রেন্ড লিস্ট বাড়াতে যাকে তাকে এ্যাড করছে, অনেকেই নিত্য নতুন নতুন ছবি আপ-লোড করছে, আর এদের বিভিন্ন কম্পোজিসনের ছবিগুলো দেখে মনে হয় ভিক্টোরিয়া সিক্রেটের ফ্যশন শো’র ছবি, কেউ ঝরর্নার পানিতে লেপ্টে থাকা বক্ষ প্রদর্শন করে, কেউ উড়না উড়িয়ে কৃত্রিম উচ্ছাসের নাত্যয়ানের চেষ্টা করে, কেউ নতুন শাড়ির বিজ্ঞাপনের মডেলের ভুমিকায়, কেউ গোলাপের সাথে গোলাপী হওয়ার আপ্রান চেষ্টা- এভাবেই যেন নিজেকে প্রকাশ করাটা বর্তমান নারীর প্যাশন বা আবেগ! অনেকে অচচেতনভাবে দৈনিক কার্যক্রমের রুটিন তুলে ধরছে, প্রতি ঘন্টায় ঘন্টায় আপডেট করছে সেগুলি!
আমি কিশোর-কিশোরী মনের উচ্ছাস থামাটে বলছি না, বলছি না নারীর স্বাধীনতার বিরুদ্ধে, বলছি না প্রযুক্তি থেকে তাদেরকে দূরে থেলে রাখতে। আমার এই লেখাটার প্রথম উদ্দেশ্য সেই সকল জুম্ম বোন যারা অবচেতন মনে ফ্যেন্টাসিতে বাস করেন, আর উদ্দেশ্যে তাদেরকে এই জগত সম্পর্কে জানানো। আমার দ্বিতীয় উদ্দেশ্য তাদেরকেই উদ্দেশ্য করে যারা নিজ্বস্ব চিন্তা-বিশ্বাস-লোকজ-জ্ঞাতি-অতীত-বর্তমান-ভবিষ্যতকে ভুলে পুরুষের কাছে নিজেদের সমর্পন করাটা নারী জীবনের স্বার্থকতা মনে করেন আর তথাকথিত নারী স্বাধীনতার ঘুড়ি উড়িয়ে বেরান নাটাইছাড়াই।
০৩
এবার একটু মুল জায়গায় যাওয়া যাক। উপরে বলে এসেছি জুম্ম নারীদের বোনদের কীর্তি-কলাপ। এবার একটু বিশ্লষনে যাওয়া যাক। ব্যাক্তি স্বাধীনতাকে ভাঙ্গার জন্য ব্যক্তি স্বাধীনতায় যথেষ্ট ।[দার্শনিক হয়ে গেলাম না তো !] তবে আমি ব্যক্তি স্বাধীনতার মাত্রাকে চিনি। তাই ব্যক্তি স্বাধীনতার নামে অন্যের বাস্তব জীবনকে বিপন্ন করতে পারছি না। পাঠককে রেফারেন্স না দিলে অনেক ক্ষেত্রে লেখাটির গ্রহনযোগ্যতা কমে যায়, আর রেফারেন্স দিতে গেলে আমার পর্যালোচনার পুরো প্রক্রিয়াটি যেমন ভেঙ্গে যাবে, তেমনি অনেকেই তাদের বিপন্ন মনে করবে।

ভালো-মন্দ না বিবেচনায় নিয়ে ফ্রেন্ড লিস্ট বাড়ানোঃ কমপক্ষে ৫ জন জুম্ম বোনের উপর পর্যবেক্ষনে দেখেছি যে তাদের ফ্রেন্ড লিস্ট এটই দ্রুত বেড়েছে যে তা বাস্তবে কোন ছেলের পক্ষে অকল্পনীয় ব্যপার। এবার তাদের ফ্রেন্ড লিস্ট পর্যবেক্ষন করে দেখলাম যার সিংহ ভাগ পুরুষ এবং উল্লেখযোগ্য একটি অংশ বেজাতি। এটে এই কথা নিঃস্বন্দেহে বলা যায় যে উপরোক্ত জুম্ম নারীদের সাথে বন্ধুত্ব গড়তে নয়, বরং তাদের প্রোফাইলে দেখা ছবি, ইনফো-ই এবং সর্বপরি তাদের লোলুপ শরীরই পুরুষের কাছে কামনাময় বস্তু! তাই জুম্ম বোনদের কাছে এবং যে সকল জুম্ম পাঠক লেখাটি পড়ে বিষয়টি যথার্থ মনে করবেন তারা সচেতনতা সৃস্টিতে নিয়জিত রাখুন।
ছবি আপ-লোড-এ সতর্কতা অবলম্বন না করাঃ অনেকে ছবি আপ-লোডের সময় ফেইসবুকের নুন্যতম সিকিউরিটির সাহাজ্য নেয় না ফলে লিস্টেড কোন ফ্রেন্ড যখন এটি শেয়ার করে, কোমেন্ট করে, ট্যগ করে তা ঐ ফেন্ডের মাধ্যমে অন্যকে দেখাতে সাহায্য করে। এভাবে সেই ছবি যদি নারীর ছবি হয় এবং তার মধ্যে যদি সুন্দরী হয়ে থাকে তা সহজেই ছড়িয়ে পরে।
[বি,দ্রঃ (১)আমিও মিথ্যা সাদু সাজবো না, এমন কাজ আমিও একবার করেছিলাম কি না। পছন্দ করা নারীর ছবি ডাউনলোড করে বানিয়েছিলাম গানের এলবাম(তবে খুন বেশী নিচে নামতে পারি নি কারন পছন্দ থেকে পারসোনাল কালেকশন তো !)(২) এক বন্ধুও মেয়েটিকে পচ্ছন্দ করত কিনা তাই তো বন্ধুত্বটাও হারিয়েছিলাম, গোলাপীনিও ফুড়ুট কইরা উইরা গেলো! আর মজার ব্যপার হচ্ছে বন্ধুটি অফার করেছিল, আমি কাব্য লিখেছিলাম ]
কৃত্রিমভাবে আবেদনময়ী ছবির দরকারটা কীঃ আসলে উপরে লিখেছিলাম- “বিভিন্ন কম্পোজিসনের ছবিগুলো দেখে মনে হয় ভিক্টোরিয়া সিক্রেটের ফ্যশন শো’র ছবি, কেউ ঝরর্নার পানিতে লেপ্টে থাকা বক্ষ প্রদর্শন করে, কেউ উড়না উড়িয়ে কৃত্রিম উচ্ছাসের নাত্যয়ানের চেষ্টা করে, কেউ নতুন শাড়ির বিজ্ঞাপনের মডেলের ভুমিকায়, কেউ গোলাপের সাথে গোলাপী হওয়ার আপ্রান চেষ্টা”।  (০২)-এর শেষে উল্লেখ করেছিলাম লেখাটা প্রধনত দুটি উদ্দে্শ্যে। এখানে দ্বিতীয় উদ্দেশ্যটাই মুখ্য।
# শিকারী যখন শিকার ধরে তখন সে শিকারের গতি বিধির দিকে তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে নজর রাখে! শিকারী অপেক্ষা শিকার যদি শক্তিশালী হয় তখন শিকারী কুটকৌশলের আশ্রয় নিয়ে শিকারকে কাবু করতে পারে। যে সকল নারীদের মধ্যে নিজেকে বিভিন্ন কায়দায় সেক্সিভাবে তুলে ধরার আপ্রান চেষ্টা তারাও হয় সুজোগ হারা(!), সুজোগ বঞ্চিত(!) অথবা সুজোগ সন্ধানী(!)। এমন নারীরা খুব সহজেই প্রতারনার শিকার হতে বাধ্য। সুজোগ হারা এবং সুজোগ বঞ্চিতরা সুজোগ খুঁজে আর পক্ষ্যান্তরে, সুজোগ সন্ধানীরা সুজোগকে যাচাই করে।
# নারী বর্তমান বিশ্বে বিজ্ঞাপনের অন্যতম মাধ্যম ও পন্য। মানুষ শুধু দ্রব্য পন্যকে কিনতে চায় তা নয়, (পুজিবাদের দুনিয়ায় সব কিছুই পন্য!) তাই সেই সাথে তারা মাধ্যমও কিনে। যে যত সুন্দরী তার অর্থমুল্য তত বেশী! আমাদের সমাজে আজকে এই পুজিবাদী চিত্রটিই দেখা যাছে! আমাদের জুম্ম সুন্দরী নারীরা সৌন্দর্য প্রদর্শন করে নিজেদেরকে বানাচ্ছে পন্য! ফেইসবুক, আদিবাসী মেলা, পিকনিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠান, বিপনীবিতানে তারা আজ এক একটি পন্য সামগ্রী! এদেরকে দাম জিজ্ঞাস করছে বুয়েট, মেডিকেল, বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া খদ্দের! দরে দামে মিল্লে তো হয়েও যায়। নারী চায় পুরুষের শৃঙ্খল ভেংগে মুক্ত হতে! অথচ এরা তবুও পরাধীন, পরাধীন হতে বাধ্য! এরা যে বড় চাকুরে, মেধাবী বুয়েটিক, মেডিকেল ছারা চিনে না! তাছাড়া, অর্থনৈতিক স্বাধীনতা অর্জন করতে হবে না! এটাই বোধ হয় নাটাই ছাড়া নারী স্বাধীনতার ঘুদ্ধি উড়ানো।
দৈনিক ঘটনাবলী ফেইসবুকে তুলে ধরাঃ এই লক্ষনটা যাদের আছে তারা এটা পরিত্যগ না করতে পারলে ভবিষ্যতে নানা রকম বিপত্তি হতে পারে। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে এই লক্ষনের ক্ষতিকারক দিকগুলো ভেবে দেখা দরকার। যেমন, কেউ যদি আগামীকাল কোন জায়গায় হানিমুনে যাবে,তার হোটেলের নাম, কক্ষ আগে থেকে প্রকাশ করে(!) তাহলে কি হতে পারে একটু কল্পনা করুন! সম্ভাব্য অনেকে কিছুই হতে পারে- আগে থেকে ক্যমেরা স্থাপন হতে পারে, দুঃচ্চরিত্ররা ঔট পেটে থেকে ফাঁয়দা লুটতে পারে এছাড়া অনেক কিছুই সম্ভব। শত্রুরা ঔট পেটে থাকতে পারে আপনাকে শায়েস্তা করতে, ডাকুরা বাড়ি ডাকাতি করতে পারে। আর, মেয়েদের দিকে ঝুকি আরো বেশী কেননা কোন কালের রোমিও-র পাগলা কাণ্ডকে ছোট করে দেখার কোন অবকাশ নেয়।
০৪
পরিশেষে কষ্ট করে পড়ার জন্য ধন্যবাদ। যদি প্রয়োজন মনে করেন আমাকে আমার ভুল ধরিয়ে দিবেন।যদি লেখাটি মনে কষ্টের কারন হয়ে থাকলে ক্ষমা করবেন, বিশেষ করে নারীবাদীরা। তবে কমেন্ট করে এই লেখক’রে যেন পচায়তে ভুল না করেন।


বি,দ্রঃ লেখাটা মনে না পড়লে Cht Bd রে ধরেন। তারাই তো আমারে এখানে লিখায় অনুপ্রেরণা দিছিলো ! [লিখতে আমার জন্ম হয় নি কিন্তু ফেইসবুকে নোটে কমেন্টের ধাক্কায় কয়েক রাঘব-বোয়াল এই চুনোপুটিকে (ল্যেজের বারি দিয়ে) এই জগতে ফেলে দিয়েছিল; ভাই রাস্তাটা বইলা দিবেন, বাইর হইয়া যামু! ছোট পানির মাছ বড় পানি ডরায়]

হেগাবগা চাংমা
১০ নভেম্বর ২০১১

About the author

হেগা

Permanent link to this article: http://chtbd.org/archives/1160

23 comments

10 pings

Skip to comment form

  1. Burbak

    Thanks

  2. Aloran Khisa

    অনেক আগের লেখা তবুও যুগোপোযুগী ।

  3. Aloran Khisa

    সেটাই…

  4. Pabitra Ju Chakma

    tnx Dada.

  5. রুপসী খীসা

    লেকাটি পড়ে ভালো লাগলো। দোষক্রুটি সবকিছু নিজের উপর বর্তায়। বর্তমান সময়ে কে কাকে আর কেয়ার করে। যে যার মত শিক্ষিত, জ্ঞ্যানী বুদ্ধীমতি।

  6. Hega Changmah

    মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ @প্রু দিদি। যদিও আমার এ’লেখাটা অনেক পুরনো এবং ভুল বানানে ভরা, কিন্তু কোন এক রহস্য গুনে এই ব্লগে সর্বাধিক পঠিত(বর্তমানে পড়া হয়েছে ২২৫৮ বার, যদিও ব্লগটি মাঝখানে বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত পাঠসংখ্যা ৩২০০ এর উর্ধে গিয়েছিল এই) পোষ্ট এটি! সম্ভাব্য অনেকগুলো কারণের মধ্যে একটি, এটি নারী সংশ্লিষ্ট ও বাস্তবতার আলোকে বর্তমান ব্যবস্থাকে তুলে ধরছে

    পূঁজিবাদের এই যুগে শুধু নারী কেন, যে কোন মানুষই তো পণ্য হয়ে উঠেছে। এখানে সুনির্দিষ্টভাবে নারীকে বলা হলেও আমাদের সমাজ-কাঠামোতে একজন পুরুষ কীভাবে পণ্য হিসেবে গণ্য হচ্ছে, সে সম্পর্কেও এড়িয়ে যাওয়া হয় নি- যা সচেতন পাঠকের নজর এড়ানোর কথা নয়।

    তারপরও যারা নানা অজুহাতে নারীকে পণ্য হিসেবে ব্যবহার করার বা নারী নিজেই নিজেকে পণ্য মনে করার এই বাজারি ব্যবস্থা ও এর মনস্তত্ত্ব না বোঝার দুনিয়ায় নিরুদ্বিগ্ন বসবাস করছেন, তাদেরকে বলবো, সাইলক ও তার ব্যাপারীরা এখন বাজারে নয়, আপনার বাড়িতে, আপনার খাবার মেনুটে, আপনার ড্রেসে…

    এখানে নারীবাদ এবং “নারীবাদ” দুটো আলাদা জিনিষ। আমাদের সমাজে কতজন নারীবাদী আছেন, আর কতজন “নারীবাদী” আছেন, তা বুঝতে হলে বিশেষজ্ঞ হতে হয় না, সভা-সেমিনারগুলোতে চোখ রাখলেই বোঝা যায়। তাই এখানে তথাকথিত যে “নারীবাদী”-দের কথা বলা হয়েছে, তাতে প্রকৃত নারীবাদীদের ব্যথিত হওয়ার কারণ দেখি না

  7. naishweprue

    Orna urano foto amaro ache r koijon amar prof pic or album dekhte allowed oitao amar mathai ache…Hega Changmah dada nijer bekti sadhinota shobari ache r somalochonar urdhe keu noy..tobe ponno kore fela r ponno kore vabatao bekti durbolota…eto khudro r tuchho issue or narider niye eto navebe onno kichu niye vablei mananshoi hoto..block or report korar prosnoi ashena…hashi pelo….never mind…moulobad o new virus..ei virus e kom beshi chelera khub beshi akranto…noile odhikarbodh r pourushotter purnotar bohiprokash hoy na..agekar.dine ei adibashi narir snanroto drossho joto savabik vabe nito ekhon r keu nei na..ctg e chakma bondhur help niye school poruya adibashi meyek bangali fnd ra mile rape er ghotona ta mone pore gelo…evabei adibashi chelerao bangalider motoi hoye jachee..gechee..jabe..oderk sudhrabe ke???naribadi kothTa emon kore likhlen j ota ekta gali!!!!?ami purushbadi hote chai..dont worry..chaliye jan…amra narira apnader gurutto pete ovvosto..ebar apnader dibo..bolun kivabe porbo,cholbo,khabo,bolbo….parle apnader k arektu gurutto dilam r ki

  8. Hega Changmah

    অনেকদিন আগে লেখাটি আবারো পড়ে দেখলাম। বানান ভূল হলেও সে সময়ের প্রেক্ষিতে এ লেখাটি ঠিক ছিল মনে করি। বর্তমান সময়ে এসে এই লেখাটা মূল্যায়ন হয়তো অন্যভাবে হতে পারে। তবে মূল বিষয় হিসেবে উঠে আসা সেই বাস্তবতা এখনো বিরাজ করছে, যা লেখাটির উপযোগিতাকে এই

  9. Sumeru Chakma

    u r right…too

  10. Sumeru Chakma

    u r eight…

  11. GyanaMoy Chakma

    ঠিক আগে ভেই দীল হোদা হুয়জ ,তরে চিতদিগোল হোচপানা বালেদি জানেলুং

  12. CM Apollo

    Use kore nijer jatiyo boner sorbanaSherman mul karon hoye dareyeche. Eai daybar ke nebe,

  13. CM Apollo

    Thik likhechen, tobe amader kichu sbajati bhai o Meyer naam

  14. NBR Chakma

    প্রথমে লেখককে ধন্যবাদ। আমি অনেক দিন ধরে ভাবছিলাম এই বিষয়টা নিয়ে কিছু লেখার জন্য। কিন্তু লেখা ভালো ভাবে সাজাতে পারছিলাম না। আপনার লেখাটা পরে মনে হলো, এর চেয়ে ভালো লেখা কোন মতে আমার ধারা সম্ভব হতো না।

    আর একটা বিষয় মোবাইল ব্যবহারেও কিন্তু আমাদের মেয়েরা কোন অবস্থায় আছে চিন্তা করলে লজ্জা এবং ভবিষ্যত প্রজন্ম নিয়ে ভয় জাগে। [প্রমাণ ঃ আমার কাছে বেশ কিছু অডিও আছে]

    তাই একবার http://hill-tract-tragedy.blogspot.com/2011/11/blog-post_18.html
    এই সংবাদ পোস্ট এ রাগ করে মন্তব্য করেছিলাম এরকম,

    “পাহাড়ী মেয়েদের এখনো কি শিক্ষা হবে না? অপ্রিয় হলেও সত্য যে, বর্তমানে পাহাড়ী মেয়েরা মোবাইলের অবাদ ব্যবহারে নিত্য অবোধ সর্ম্পক করছে লম্পদ বাঙ্গালী ছেলেদের সাথে। যে ছেলেরা মিষ্টি কথায় জালে আবদ্ধ করে পাহাড়ী মেয়েদের আর তাদের লক্ষ্য থাকে সেই সব মেয়েদের ভালবাসা নয় শরীর। আমাদের সমাজ ও অভিবাবকদের ফাকি দিয়ে মেয়েরা তারের শরীর বিকিয়ে আবার ফিরে আসে আমাদের সমাজে। লম্পদ বাঙ্গালী সমাজ তা স্মৃতি করে করে উপহাস করে আমাদের মা বোনদের ইজ্জতের।”

  15. hoi jeda, noi mora

    *eikhane lekhok tar apon buddhite (ei lekhoker dharonake puji kore bolsina, but shudhumatro ekta swabhabikota theke bolsi) ektu khatiye tar lekhai lekhok pathok tante cheyesen (hoito moner ojante) hoitoba tar bolar khetre charuta dekhate. tobe lekhok somoyeroi ek proyojoniya bisoike tule dhoresen. asha kori sobai, bhai-bon, chele-meye, ektu virtual jogote sabdhanota obolombon korben.

  16. hoi jeda, noi mora

    amar mote eikhane writer lekhar khetre arektu songjomi hote parten. tobe ami bujsi tini ki bujate chascen. tini muloto amader jumma vai-bonder (bishes kore uthti bonder) ektu sotorkotar kotha bolesen, tobe seikhane CHUN mishrito chilo ja ektu ghola korate sahajjo korbe. Kintu bortoman jugta hsce je jai bhabuk amar ki!!!! ei bad ke samne rekhe oneke bodle jasce. kintu eikhane sobaroi sabdhan haoa dorkar ei bole je, ei jugta emon ekta jug, jei jugta kebol taderoi, jara buddhir sathe chole.
    eikhane lekhok tar apon buddhite (ei lekhoker dharonake puji kore bolsina, but shudhumatro ekta swabhabikota theke bolsi) ektu khatiye tar lekhai lekhok tante cheyesen. shikhari, shikar dhorar jonno nana buddhei obolombhon korbe. kintu seikhane Srijonir moto bonra shikar hye ese har hameshai dhora dibei. kintu Srijonir uchit chilo ei bepare ektu buddhir khela khele jobab dite. eikhane onek kisui ase jeigulor korun jobab deoar moto.

    ami tai ei lekhate ekta folofrosu jukti, somalochonar opekkhai roilam. tobe kono bekti akromon amar kammo noi. maje maje ese ami na hoi mottobbogulo pore ektu ros niye gelam!!!!!!!!!!!!

  17. হেগাবগা চাংমা

    নিজের লেখায় মন্তব্য দেখেলে যে কারো ভালো লাগে। তবে মন্তব্যগুলোতে যদি একই বিষয়কে বারবার উপস্থাপন করা হয় এবং ব্যক্তি কেন্দ্রিক হয় তাহলে লেখার বিষয়বস্তুকে ছাড়িয়ে বিষয়টি অন্য প্রসংগে চলে যায়। @সৃজনি, আপনি একটি গুরুতর অভিযোগ করছেন বারবার। অভিযোগটি যেহেতু আমার দিকে তাই উত্তর না দিয়ে পারছি না।
    শুধু আপনার জন্যই আবারো স্পষ্টভাবে বলছি-“জুম্ম নারীদের হেয় করা আমার উদ্দেশ্য নয়। লেখাটি চলমান ঘটনা প্রবাহ বিশ্লষন করে তুলে ধরা হয়েছে মাত্র।“
    জুম্ম নারীকে হেয় করা হয়েছে এমন প্রমানকে সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরুন। যদি হয়েই থাকে, প্রয়োজনে আমি লেখাটি এডিট করবো।
    আপনার প্রগ্রেসিভ কথাটা ভালো লেগেছে “i feel proud of them who r really positive thinker jumma”। আশা করি কুয়ারপানিতে সাতার না কেটে আপনার উক্তিটির প্রতিফলন ভবিষতে দেথা যাবে।

    মন্তব্যকারী সকল ভাই-বোনদের প্রতি ধন্যবাদ।

  18. Srijony Tripura

    @Boruna ..ei namer karo sathe amar jhogra howar prosnoi asena. bujha jacche eki bekti nana choddobese amake personally attack korchen. sahosh thakle bolun kon name jhogra korechilen. r amar jhogra korar manei hoina. jokhon kuno jumma narider heyo kora hoi, kingba amake personally attack kora hoi ..tobe ami kawke torke charina. echarato torko howar prosnoi asena. coz amar ekta platform ache. so i should be careful for my all comment and i hv bn trying it …r edaningto ami amar group chara onno kuno group e comment o korina..specially cht bd theketo ami out hoye esechi. karon jumma bonder heyo kora barta amar sojjo hoina. r Boruna for ur kind info- yes amar fb frnlist onek boro karon ami sokol jumma bhaiboner request accept kori without any doubt. jader nea kaj korchi tader sukh dukkher kothai jodi na share korlam tobe kajer sarthokota nei amar mote. apnader ki mot janina. tobe fb te amar onek jumma bhaibon achen jara tader sukh dukkho amar sathe share koren. amake nirdesona den gopon choddobese thekeo.abar tiroskaro je hote hoina ta na. ei je tar proman to eguloi. n i feel proud of them who r really positive thinker jumma.

  19. শুভাশীষ চাকমা

    সৃজনী ত্রিপুরাকে বলছি ভাষার সৌদর্য একদিনে বা দু-দিনে গড়ে ওঠে না। আপনি লেখকের লেখার বোধটুকু ধরার চেষ্টা করুন, ভাষার সৌদর্য -কে নয়। আর এটা ব্লগ এটা ছাপাখানা নয়। কিছু ভুল বা লেখার ত্রুটি আপনাকে নিজ দায়িত্তে পড়ে নিতে বা বুঝে নিতে হবে।

  20. শুভাশীষ চাকমা

    Srijony Tripura $
    আপনি মনে হয় লেখকের ভাষাটা ধরতে পারেননি,তাই আপনার মন্তব্য-
    “ব্যাক্তি জীবনে মেয়ে বান্ধবী খুব কমই ছিল, আর যে কয়েকজন হাতে গোনা ছিল তাদেরকে চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলার সাহস এই জীবনে হয় নি।” লেখকের এই ধরনের মন্তব্য থেকে বোঝা যায় নারীদের সহিত আন্তরিকতা না থাকায় লেখক এ ধরনের নেতিবাচক মত পোষন করেন। নারীকে বুঝতে হবে। না বুঝে মৌলবাদীদের মত মন্তব্য কোন জুম্ম ভাই বা বোনের কাছে আশা করিনি। “”

    লেখক এখানে তার অসহায়তা বা লজ্জা প্রকাশ করেছেন বিদদেষ নয়। আপনি লিখেছেন- “নারীকে বুঝতে হবে। ” তার মানে কি এই যে শুধু পুরুষরা নারীকে বুঝবে , নারীরা পুরুষকে নয় ?
    আপনি বলেছেন – “মৌলবাদীদের মত মন্তব্য ”
    আপনার সংজ্ঞায় মৌলবাদী কারা ? আমার মনে হচ্ছে আপনি মৌলবাদী বলতে ইসলামী চিন্তা-চেতনের কথা বলছেন। তাই কি ?
    আপনার প্রথম শব্দতেই অসহিষ্ণুতার আভাস পাওয়া যায় এভাবে -“ন্যাক্কাড়জনক লেখা।” আপনি লেখকের লেখার বিশ্লেষণ বাদ দিয়ে শুরুই করলেন “ন্যাক্কাড়জনক” শব্দ দিয়ে যেটি আপনার শুধুমাত্র অসহিষ্ণুতাই নয় প্রকাশ করছে আপনার বোধের অনুভবকে।

  21. হেগাবগা চাংমা

    ধন্যবাদ সৃজনি ত্রিপুরা ৩বার পড়ার পরে ভাষার দূর্বলতা ধরতে পারার জন্য এবং ধরিয়ে দেয়ার জন্য।
    আসলে mathematics পড়তে পড়তে “মনে করি/ ধরি ছাড়া” কিছুই শিক্ষা হই নাই এই জীবনে! তবুও সমাজ সমালোচকের মুখোশ পড়ে দেখটে এসেছিলাম আপনাদেকে! আর বার বার দেখা হচ্ছে আপনার সাথে!হ্যা, ধাক্কা ধাক্কি হয়ার আগেই আমি নিরাপদ দুরত্বে আছি, থাকবো। আশা করি আরো দেখা হবে…
    বি,দ্রঃ “ধাক্কা ধাক্কি” বলতে আমি শারিরীক সংঘর্সকে বুঝাচ্ছি না, এখানে মন্তব্য-পাল্টা মন্তব্যকে বুঝানো হয়েছে। এটি শুধু একটি বুপক ছাড়া কিছুই নয়।]

  22. Boruna Chakma

    Srijony Tripura## Amar mone hoy apnar ekta gun ache, seta holo buje na buje , jekhane-sekhane comments kora. Er age apni amar sathe FB-te jhogra lagiyechen shudhu shudhu kon karon charai…ta O abar Group-e. Lekhok jeta bolechen seta mone hoy apnar FB profile-er baire jacche. Tai eto ga joluni hocche apnar.

  23. লাল

    Srijony Tripura,
    হা…হা…হা… আমাদের চোখ ঝলসে যায় না তাই আমরা সানগ্লাসও দেই না। আমি তো লুকিয়ে নেই !!! আপনি কি লুকিয়ে ? আর AC রুমে আমি বৈঠক করিনা সেটা করেন আপনারা, নিজের দোষ কেন অন্যর উপর চাপাচ্ছেন ? সত্য কথা বলতে শিখুন না, ক-দিন আর অসত্য আর মিথ্যর উপর পা চালাবেন ?

  24. Srijony Tripura

    @LEKHOK..BHASAR SONDORJO BOLEO EKTA MONTOBBO BANGLAI ACHE..

  25. Srijony Tripura

    @Adri..ami ejonnoi khub kom montobbo kori karo lekhai.karon apnar moto mukhos pora aro onekei achen jara na bujhe na dekha personal attack kore nijeder ei ku kormer jonno proud feel kore. @lal ..”সৃজনী ত্রিপুরা কি শ্রেণী সংগ্রাম বোঝেন ?
    পুঁজিবাদ বোঝেন ?
    পুঁজিবাদী গঠন বোঝেন ?
    পুঁজিবাদী বাজার সম্পসারণ বোঝেন ?
    পুঁজি নারীকে কি করে পণ্য বানাচ্ছে তা কি অনুধাবন করেন ?
    বুঝে কথা বলতে আসলে কথা হয় আর তা না হলে সেটা আঠা হয় …আগে পড়ুন তারপর আসুন…সানগ্লাস পরে মানবন্দ্ধন-এ গেলেই নিজেকে বুঝদার ভাবার কোন কারণ নেই।” bhai apnar moto eto bujdar manush jokhon achei tobe keno apnader lukea thaka ac rolmer bhetor? asunna bahire tibro uttal alote …cokh jholse jabenato abar???!!!

  26. হেগাবগা চাংমা

    ধন্যবাদ সৃজনী, অদ্রি চাকমা এবং লাল’কে। সমাজ জীবনকে অন্যরা কিভাবে বিশ্লেষন করবে যানি না তবে ব্যক্তি হিসেবে আমার মতামত হচ্ছে জগতকে জ্ঞানের আলোকে বুঝা। সেটা হতে পারে সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থা,পুজিবাদী ব্যবস্থা, গনতন্ত্র, মানবতাবাদ, জাতীয়তাবাদ সহ যে কোন জ্ঞানের রাস্তা দিয়ে। এই রাস্তাগুলো মানুষকে যেমন বিকাশিত করে, আবার ভুল ব্যখা দ্বারা বিপন্নও করতে পারে। সঠিক উপলদ্ধি দ্বারা উল্ল্যেখিত প্রতিটি ‘বাদ আমাদেরকে এগিয়ে নেয়।
    বাস্তব জগতে সাম্যবাদী,মানবতাদাদী,জাতীয়তাবাদী অনেককেই দেখেছি ভন্ড রুপে। যেকোন একটা, ধরুন জাতীয়তাবাদ। যদি কোন মানুষ জাতীয়তাবাদ ধারন করে সে একই সঙ্গে সাম্যবাদী,মানবতাবাদী,নারীবাদী,সহ হাজার হাজার ‘বাদী হতে পারে! যে প্রকৃত জাতীয়তাবাদী তাকে অবশ্যয় তার জাতির প্রতি ভালোবাসা থাকতে হয়। জাতির প্রতি ভালোবাসা তাকে জাতি গঠনের উপাদাকেও[মানুষ(নারী-পুরুষ-ধনী-গরীব)]কে ভালোবাসতে হয়। তার মানে তাকে মানবতাবাদী হতে হয়।
    মানবতাবাদ বৈষম্য মানে না।তাই তাকে অবশ্যয় সাম্যবাদী হতে হয়। এভাবেই মানুষ জাতীয়তাবাদ থেকে হয়ে উঠে মানবতাদাদী,সাম্যবাদী।এভাবেই ধাপে ধাপে সীমাবদ্ধতাকে দূর করে প্রগতির পথে এগিয়ে চলে সমাজ।

    আমি নারীবাদ-পুরুষবাদ বলে বাস্তবে কিছু আছে বলে মনে করি না, থাকাও উচিত নয়। তবে নিয়ে সর্বত্র চেচামেচি হয়, এগুলি বিভেদ বাড়ায়। সমাজে নারীকে বিভক্তি মুক্তি দিতে পারবে না।তথাকথিত নারীবাদ সাম্যবাদের সহায়ক হতে পারে মাত্র। তার জন্য চাই সমাজের সর্বত্র সঠিক জ্ঞানের অনুশীলন।

    বি,দ্রঃ[ জাতীয়তাবাদ সীমাদদ্ধ। ভুল জাতীয়তাবাদ মানুষকে ধংশ করে। বিভিন্ন ‘বাদ’এর সীমাবদ্ধতাকে অতিক্রমের মাধ্যমে মানুষ সামনে এগিয়ে যায়।]
    [পুকুরের সীমিত পানি সাতার শেখা জন্য উত্তম। নদীতে সাতার কেটে মজা পাওয়া যায়, কূল পাড়ি দেয়া যায়। সাগরের পানি অসীম, এখানে মানুষ নিত্য নতুনত্বকে আবিস্কার করে। বাস্তব জীবনে এই হোক আমাদের পথ চলার শিক্ষা।]
    ধন্যবাদ সকলকে।

  27. লাল

    সৃজনী ত্রিপুরা কি শ্রেণী সংগ্রাম বোঝেন ?
    পুঁজিবাদ বোঝেন ?
    পুঁজিবাদী গঠন বোঝেন ?
    পুঁজিবাদী বাজার সম্পসারণ বোঝেন ?
    পুঁজি নারীকে কি করে পণ্য বানাচ্ছে তা কি অনুধাবন করেন ?
    বুঝে কথা বলতে আসলে কথা হয় আর তা না হলে সেটা আঠা হয় …আগে পড়ুন তারপর আসুন…সানগ্লাস পরে মানবন্দ্ধন-এ গেলেই নিজেকে বুঝদার ভাবার কোন কারণ নেই।

  28. অদ্রি চাকমা

    সৃজনী ত্রিপুরা, কোন কিছু ভালোভাবে না বুঝে তাতে মন্তব্য দেয়াটা ঠিক নয় এটা আমাদের কাছে, আপনার কাছে কি ?
    আপনি কি লেখাটি ভালোভাবে পড়েছেন ? আমার মনে হয় না পড়েছেন।
    যাই হোক আপনি নারী বলেই যে অপরাধে/খারাপ কর্মেও আপনি তাদের সাপোর্ট করবেন এটা তো ঠিক নয়। আপনাকে অনুরোধ করা হচ্ছে আপনি লেখাটি আবারো ভালোভাবে পড়ুন। যুক্তির খাতিরে যুক্তি নয়। ব্যাপারটি হৃদয়গম করুন। শুধু শুধু তর্ক করে সময় ও অর্থ দুটোই আপনি ধংস করছেন।

  29. হেগাবগা চাংমা

    ধন্যবাদ @সৃজনী ত্রিপুরা, আপনার সৃজনশীল মন্তব্য আমার ন্যাক্কাড়জনক লেখাটির উপর বর্ষিত হওয়ার জন্য!একটু মনের চোখ খুলে দেখুন-> প্রথমত লেখাটিকে যে চার খণ্ডে উপস্থাপিত হয়েছে(সূচনা বাদে),প্রতিটি আলাদাভাবে অর্থবহ।(১)-এ ব্যক্তির জীবনে নারী,(২)-এ চলমান ঘটনা প্রবাহে দেখা নারীর ভুমিকা, (৩)-এ ঘটনা প্রবাহকে লেখকের দৃষ্টিকোন থেকে বিশ্লেষন এবং (৪)-এ পাঠকের দরবারে সৌজন্যতামুলক বার্তা।লেখার বিচারে এখানে প্রতিটি খণ্ডের গুরুত্ব আলাদা আলাদা হলেও বিজ্ঞ পাঠক মাত্রই মুল বিশ্লেষনকে আমলে নিয়ে বিষয়টি বুঝতে পারার কথা।
    আগেই বলেছি যে লেখাটি সমালোচনা চেয়েই লিখছি;বিশেষকরে নারীবাদী পাঠক-পাঠিকাদের দিক থেকে।ব্যক্তি জীবনের এখানে যতটা গুরুত্বপুর্ণ, তার চেয়ে অনেক গুরুত্বপুর্ণ ঘটনা প্রবাহ ও এর বিশ্লেষন।
    যে ঘটনাটি সত্যিই ঘটেছে তাকে ভদ্রতার মুখোশ পড়িয়ে উপস্থাপন করা যে ভণ্ডামিরই সহনশীল উপস্থাপন বৈ কিছুই নয়।তাই বলছি, তাকে যতই মৌলবাদীর লেবাস দিয়ে প্যেকেট জাত করেন না কেন গুন-মান রক্ষাকারীর চোখকে ফাঁকি দিয়ে যে চালান হবে না!
    আবারো ধন্যবাদ।

  30. Srijony Tripura

    ন্যাক্কাড়জনক লেখা। “ব্যাক্তি জীবনে মেয়ে বান্ধবী খুব কমই ছিল, আর যে কয়েকজন হাতে গোনা ছিল তাদেরকে চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলার সাহস এই জীবনে হয় নি।” লেখকের এই ধরনের মন্তব্য থেকে বোঝা যায় নারীদের সহিত আন্তরিকতা না থাকায় লেখক এ ধরনের নেতিবাচক মত পোষন করেন। নারীকে বুঝতে হবে। না বুঝে মৌলবাদীদের মত মন্তব্য কোন জুম্ম ভাই বা বোনের কাছে আশা করিনি। মসজিদের মাওলানাদের এমন মন্তব্য শুনেছি নারীদের বক্ষ দুলাইয়া হাঁটা…ব্লা ব্লা ব্লা…কোন জুম্ম ভাইয়ের ভাষা যে এমন হতে পারে কল্পনায় ও ছিল না! আর দেখলাম অনেক ভাইয়েরা বাহবা জানিয়েছেন! ভাইয়েরা আমার আপ্নারা যদি নিজের বোনদের এভাবে নিজেরা ছোট করেন তবে অন্যরাতো দ্বিধা বো্ধ করবে না। লেখকের উদ্দেশ্যে মন্তব্য- সমালোচনা গঠনমূলক হওয়া উচিত।

  31. info chtbd.net

    হেগাবগা চাংমা @ ঠিক কথা বলেছেন…আমাদের এখন জরুরি দ্বিমত হওয়া, জরুরি প্রশ্ন করা, জরুরি দ্বিমত আসা। দ্বিমত না আসলে আপনি বুঝতে পারবেন না আপনার ফাঁকটুকু। আমাদের এখন সবচে বেশি প্রয়োজন আমাদের ফাঁকটুকু ধরতে পারা।

  32. হেগাবগা চাংমা

    মুক্তমনাতে (http://mukto-mona.com/home/page2.html) যখন প্রথম প্রবেশ করি তখন একটি কথা খুব ভালোলেগেছিল। সেই কথাটি হচ্ছে,
    “বরং দ্বিমত হও, আস্থা রাখো দ্বিতীয় বিদ্যায়
    বরং বিক্ষত হও প্রশ্নের পাথরে
    বরন বুদ্ধির নখে শান দাও, প্রতিবাদ কর”
    আসুক দ্বিমত! লেখাটি লিখে যদি ভিন্ন মতের মন্তব্য নাই পাই তবে বুঝবো যে লেখাটি নতুন কিছু সংযোজন করতে ব্যর্থ হয়েছে! বা পাঠকের কাছে মুল্যহীন অক্ষরের সমস্তি ছাড়া কিছুই হয় নি!

  33. info chtbd.net

    হা… হা… হা… কেন চিন্তা করছেন , আপনার ভাবনা আপনি লিখছেন। সবারি যে সবখানে সহমত পোষণ করতে হবে এমনটা ভাবার কি কারণ … দ্বিমত সবখানেই থাকবেই… আপনি আপন গতিতে লিখুন। আমরা আপনার সাথে আছি…

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>